গুইমারায় তিন ব্যক্তিকে ভিন্ন অপরাধে একলক্ষ ত্রিশ হাজার টাকা জরিমান ও ভিন্ন মেয়াদে করাদন্ড দেয় ভ্রাম্যমান আদালত

জলাশয় ভরাট,পাহাড় কেটে ঘর ণির্মান,ডিগ্রী ব্যতীত ডাক্তার পদবী ব্যবহার করায়,গত এক সাপ্তায় গুইমারা উপজেলার তিন ব্যক্তিকে এক লক্ষ ত্রিশ  টাকা জরিমানা,অনাদায়ে ভিন্ন মেয়াদে তিনজনকে বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেছে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট,গুইমারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার তুষার আহাম্মেদ।

বৃহস্প্রতিবার(৭নভেম্বর)জলাশয় ভরাটের অপরাধে গুইমারা উপজেলার জালিয়াপাড়ার হাজী ইসমাইলকে বাংলাদেশ পরিবেশ  সংরক্ষণ আইনের ১৯৯৫ সালের (ঙ) ধারায় ৩০ হাজার টাকা,অনাদায়ে দুই মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

৪নভেম্বর অবৈধ ভাবে পাহাড় কেটে কাঠের ঘর ণির্মান করায় বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষন আইন-১৯৯৫সালের ৬এর (ক)ধারায় কালাপানির আমতলীর বাসিন্ধা মো: মজিবর(৩৫)পিতা মোহাম্মদ উল্লাহকে ৫০ হাজার টাকা জরিমান,অনাদায়ে এক মাসের বিনাশ্রম করাদন্ড দেয় আদালত।একই দিনে এম.বি.বি.এস ডিগ্রী ব্যতীত ডাক্তার পদবী ব্যবহার করায় বাংলাদেশ মেডিকেল  এবং ডেন্টাল কাউন্সিল আইন-২০১০ এর -১ধারায় উপজেলার পশ্চিম বড়পিলাকের বাসিন্দা মো: ছরোয়ার হোসেন পিতা মৃত দলীল উদ্দীনকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা,অনাদায়ে এক বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেয় ভ্রাম্যমান আদালত।

এসময় গুইমারা থানা অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) বিদ্যুৎ বড়ুয়া সহ হাফছড়ি পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ আসহাব উদ্দিন ও অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এসব অভিযান পরিচালনাকারী ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট,গুইমারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার তুষার আহমেদ বলেন,এ ধরনের অভিযান গুইমারায় অব্যাহত থাকবে।

অভিযান পরিচালনাকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এই ধরনের অভিযান অব্যাহত প্রতিশ্রুতি দিলেও গুইমারা মেম্বার পাড়ার আহম্মদ কবির,নুর কবির ও আনোয়ার কর্তৃক পাহাড় কাঁটার কারনে পার্শবতী বাড়ি ঝুঁকির্পূন হওয়ার পরও প্রশাসন কেন নিরব?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here